একজন ব্যবসায় উদ্যোক্তার মাঝে যেসব গুণাবলি থাকা উচিত

‘উদ্যোগ’ ও ‘উদ্যোক্তা’ দুটি আকর্ষণীয় শব্দ, যাতে মিশে আছে আশাবাদ ও সাফল্যের আকাঙ্ক্ষা। একটি আইডিয়া তৈরি করুন, সে আইডিয়া অনুযায়ী কাজ করুন আর তারপরে মার্কেটিং করুন। আর দিনশেষে এটিএম মেশিন থেকে টাকা তুলুন! কিন্তু না, ক্যারিয়ার হিসেবে ব্যবসাবাণিজ্য বেশ প্রলোভনীয় হলেও এতে সাফল্য লাভের পথটি এতোটা মসৃণ নয়। সফল উদ্যোক্তারা কর্মঠ ও বুদ্ধিমান হয়ে থাকেন। বর্তমান প্রযুক্তির যুগে একটি উদ্যোগ নেয়া, একটি ব্যবসা শুরু করাটা অনেক সহজ। স্মার্টফোনের মাধ্যমে কয়েক ক্লিকেই একটি ব্যবসা শুরু করা যায়। কিন্তু ব্যবসাকে সফল করার জন্য হতে হয় একজন উপযুক্ত ব্যবসায়ী কিংবা উদ্যোক্তা। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক, একজন ব্যবসায় উদ্যোক্তার মাঝে কী কী গুণ থাকা বাঞ্ছনীয়।

Source: paggu.com

ব্যবসায়ের লক্ষ্যে পৌঁছার জন্য একজন উদ্যোক্তার অর্গানাইজিং ক্ষমতা থাকতে হবে। ব্যবসায়ের জন্য সঠিক স্থান, কাজ, লক্ষ্য, ইনভেস্টমেন্ট এবং অন্যান্য ক্ষুদ্র থেকে ক্ষুদ্রতর উপাদানের উপরই একটি ব্যবসায়ের সাফল্য নির্ভর করে। ব্যবসা সম্পর্কিত নিয়মাবলী, ব্যবস্থাপনা জ্ঞান ও দক্ষতা যদি না থাকে তাহলে উদ্যোক্তা হিসেবে সফল হতে পারবেন না। আর এই দক্ষতা আর যোগ্যতা অর্জনের জন্য একজন যোগ্য উদ্যোক্তার শিক্ষিত ও অভিজ্ঞ হতে হবে এবং একইসাথে জটিল বিষয় নিয়ে চিন্তাভাবনা করার দক্ষতা থাকতে হবে। বিভিন্ন সমস্যায় দ্রুত সমাধান বের করার ক্ষমতা থাকতে হবে। যেকোনো বিষয়ে ধৈর্য ধরার মতো মন মানসিকতা থাকতে হবে। বিভিন্ন পারিপার্শ্বিক অবস্থায় খাপ খাওয়ানোর দক্ষতা থাকতে হবে। অসাধারণ যোগাযোগ দক্ষতা থাকতে হবে। যেকোনো বিষয়ে বিচক্ষণতার সাথে নেগোসিয়েশন করার দক্ষতা থাকতে হবে। অসাধারণ ইন্টারপার্সোনাল দক্ষতার অধিকারী হতে হবে।

Source: futurpreneur.ca

ব্যক্তিত্বহীন মানুষকে কেউই পছন্দ করে না। তাই একজন উদ্যোক্তাকে হতে হবে আকর্ষণীয় মনমানসিকতা ও অসাধারণ ব্যক্তিত্বের অধিকারী। অনেকে এই বিষয়টাকে গুরুত্ব দেন না। কিন্তু এই বিষয়ের উপর কাস্টোমার ধরে রাখার চিন্তা ভাবনা অনেকাংশেই কমে যায়। একটা ক্রিকেট দলে কিংবা ফুটবল দলে যেমন অধিনায়কের উপর পুরো দলের ভার থাকে তেমনি একজন উদ্যোক্তার উপরই পুরো ব্যবসা ও সেই ব্যবসায়িক দলের ভার থাকে। এজন্যে একজন উদ্যোক্তাকে ব্যবসার গতিশীল অধিনায়ক বলা হয়। কারণ, উদ্যোক্তার সঠিক আর চমৎকার নেতৃত্বের উপরই ব্যবসায়ের সফলতা নির্ভর করে।

Source: lypost.ng

যেকোনো উদ্যোক্তাকে পারিপার্শ্বিক অবস্থা, মার্কেট রিসার্চ, প্রতিযোগিতা মূলক জ্ঞান, পণ্যের বাজার দর, সেবার অবস্থান, মানুষের চাহিদা, কাস্টোমারের সাইকোলজিসহ বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে অভিজ্ঞ হতে হবে। একজন উদ্যোক্তার মূল ও প্রধান গুণ হচ্ছে তার মাঝে নতুন কিছু তৈরি করার দক্ষতা ও আইডিয়া থাকতে হবে। আইডিয়া ছাড়া কোনো কিছু তৈরি করা সম্ভব নয়। তাই আইডিয়া হচ্ছে একজন উদ্যোক্তাকে ‘উদ্যোক্তা’ হিসেবে গড়ে তোলার প্রথম পদক্ষেপ। আইডিয়ার বাস্তবায়নের জন্য আপনার থাকতে হগবে উদ্ভাবনী শক্তি। আর সেটার জন্য আপনার দরকার পড়বে শিক্ষা, যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা আর দক্ষতার। এসব মিলিয়ে আপনাকে একজন উদ্যোক্তা হিসেবে যেকোনো সেবা কিংবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানোর মতো উদ্ভাবনী ক্ষমতা রাখতে হবে।

Source: cio.com

সৃজনশীলতা একজন উদ্যোক্তার মূল অস্ত্র হতে পারে। বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা রয়েছে। তার মাঝে নিজের উদ্ভাবনী শক্তির সাথে সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে নতুন কিছু তৈরি করার মতো অবস্থান থাকতে হবে একজন উদ্যোক্তার। থাইল্যান্ডের থাম্মাসাত বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রফেসর কার্ন্দে লিওপাইরোটের মতে,

সৃজনশীলতাই অন্ট্রাপ্রিনিউয়ারশিপের মূল বিষয়বস্তু।

Source: udemy.com

ব্যবসায়ের ভবিষ্যৎ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে কিংবা প্রতিষ্ঠানের অবস্থান ও মূল্য ভবিষ্যতে কি হবে বা কতটুকু হবে সে সম্পর্কে আগে থেকেই ধারণা রাখা উচিত একজন উদ্যোক্তার। কারণ, উদ্যোক্তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার উপরই একটি ব্যবসা সামনে এগুতে পারে। সফলতা লাভের অদম্য ইচ্ছাই পারে একজন উদ্যোক্তাকে সফল করতে। আর এই গুন না থাকলে উদ্যোক্তার পক্ষে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সম্ভব নয়। স্বাধীনচেতা উদ্যোক্তা হওয়ার উপকারিতা হচ্ছে, স্বাধীন মনোভাব একজন উদ্যোক্তাকে অনুপ্রেরণা যোগায় ও আরো বেশি সৃজনশীল করে গড়ে তোলে।

Source: udemy.com

একজন উদ্যোক্তার মধ্যে ব্যবসায়ের সাফল্য, ব্যর্থতা ও বিভিন্ন ধাক্কা সামলানোর মতো মনাসিক শক্তি ও সামর্থ্য থাকতে হবে। আত্মবিশ্বাস একজন উদ্যোক্তাকে আরো বেশি সাবলীল করে তুলতে সাহায্য করে। আর একইসাথে অধ্যবসায় একজন উদ্যোক্তাকে পরিশ্রমী হিসেবে গরে উঠতে সাহায্য করে। ঝুকিবিহীন কোনো ব্যবসা বা উদ্যোগ গ্রহণ পারতপক্ষে সম্ভব নয়। ঝুঁকিগ্রহণ নিয়ে ডান এন্ড ব্র্যান্ডস্ট্রিট কোম্পানির চিফ টেকনোলজি অফিসার অ্যারন স্টিবেল বলেছেন,

ব্যর্থতার অপর পিঠই হচ্ছে অন্ট্রাপ্রিনিউয়ারশিপ।

Source: opstart.ca

ব্যবসায়ের সাথে সম্পর্কিত নানা বিষয় যেমন: ক্রেতাদের সাথে সম্পর্ক, ব্যবসায়ের নীতি, উদ্দেশ্য, লক্ষ্য ইত্যাদি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে একজন উদ্যোক্তার। একইসাথে একজন উদ্যোক্তাকে হতে হবে সাহসী ও শক্ত মনোবলের অধিকারী। কারণ, সাহস আর মনোবল ছাড়া কোনো ঝুকিপূর্ণ কাজ করা যায় না। উদ্যোক্তাকে অবশ্যই শুধুমাত্র মানসিক প্রশান্তি কিংবা বিনামূল্যে সেবা দিনের দিকে আগ্রহ দিলেই চলবে না, একজন ব্যবসায়ী হিসেবেও ভাবতে হবে। আর সেজন্যে আর্থিক লাভ ও উন্নতির দিকেও একজন উদ্যোক্তার সর্বদা দৃষ্টি রাখা উচিত।

Source: edx.com

উদ্যোক্তা হিসেবে সাফল্য লাভের জন্য আপনাকে জীবনের অনেক আরাম আয়েশ ত্যাগ করতে হবে। মাঝে মাঝে নিজের জীবনের সুখশান্তি বিসর্জন দিয়ে হলেও কাস্টমারের জন্যে সুখবর এনে দিতে হবে। স্টিভ জবসের কথাই ধরুন। তিনি নিজের প্রিয় ফল আপেলের নামে  কোম্পানির নাম রাখলেন অ্যাপল । একসময় নিজের প্রতিষ্ঠান থেকে তাকে বের করে দেওয়াও হয়েছিল,তবু তিনি হাল ছেড়ে দেননি। কারণ তিনি বুঝতে পেরেছিলেন, তার উদ্ভাবিত পণ্য মানুষের কাজে লাগবে, পৃথিবীতে ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে।

Source: trak.in

স্টিভ জবস তার জীবনের অনেকটাই অ্যাপলের পেছনে খরচ করেছেন। তিনি এত সকালে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতেন আর এত রাতে ঘরে ফিরতেন যে, একসময় নিজের পরিবারের মানুষের সাথে তার দেখাসাক্ষাত কমে গিয়েছিলো। এমনও দিন গেছে, যখন কাজের চাপে খাবার খাওয়ার কথাও ভুলে গেছেন। এভাবে নিজের সময়কে কাজে লাগিয়েই স্টিভ জবস লাখো মানুষের হাতে আইফোন তুলে দিতে পেরেছেন, মৃত্যুর পরও অমর হয়ে আছেন আমাদের মাঝে।

Featured Image: jamesgmartin.center

The post একজন ব্যবসায় উদ্যোক্তার মাঝে যেসব গুণাবলি থাকা উচিত appeared first on Youth Carnival.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *