স্ব-চাকরিতে প্রথম মাস ভালোভাবে টিকে থাকতে ৪টি পরামর্শ

পৃথিবীতে অনেক মানুষই নিজ উদ্যোগে, নিজস্ব কর্মসংস্থানমূলক কাজকর্ম শুরু করলেও, যথাযথভাবে পদক্ষেপ গ্রহণ না করার কারণে, সফলতার মুখ দেখতে ব্যর্থ হয়েছে। উদ্যোক্তা হিসেবে সফল হতে হলে, অবশ্যই কঠোর পরিশ্রমের পাশাপাশি কৌশলপূর্ণ পদক্ষেপে সামনের দিকে অগ্রসর হতে হবে। আপনি যদি স্ব-চাকরি শুরু করেন, তাহলে আপনাকেও কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে।

Source: ghanatalksbusiness.com

বিশ্বে যারা উদ্যোক্তা হিসেবে সফলতার মুখ দেখেছেন, তারা প্রত্যেকেই তাদের নিজস্ব ব্যবসার কাজ শুরু করার প্রথম মাসে, বেশ কষ্ট স্বীকার করেছেন। প্রথম মাসে একজন উদ্যোক্তাকে অনেক বেশি ঝামেলার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। অনেকেই এসব ঝামেলা যথাযথভাবে সমাধান করতে না পারার কারণে, ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়। তাই একজন উদ্যোক্তার জন্য প্রথম মাসটি টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে কাজ করে। প্রথম মাসে যদি আপনি ভালোভাবে টিকে থেকে, আপনার স্ব-চাকরিতে সুষ্ঠুভাবে বহাল থাকতে পারেন, তবে আপনার জন্য সফলতা অর্জন করা তেমন কোনো কঠিন ব্যাপার হবে না।

Source: due.com

ব্যক্তিগত চাকরি শুরু করার প্রথম মাস কীভাবে অতিবাহিত করবেন? সে সম্পর্কে দিকনির্দেশনা পেতে, এই আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। কারন আমি এই আর্টিকেলটিতে আলোচনা করবো, কীভাবে একজন উদ্যোক্তা তার ব্যক্তিগত চাকরি কিংবা কর্ম শুরু করার প্রথম মাসটি, সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে টিকে থাকতে পারে। চলুন আমরা এ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ ৪টি পরামর্শ জেনে নিই।

১. কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করুন

আপনি যখন স্ব-চাকরি শুরু করবেন, তখন নিজের একটি কর্মপরিকল্পনা ও সময়সূচি নির্ধারণ করুন। আপনি যদি আপনার কর্মপন্থা নির্ধারণ না করেন। তাহলে দুটি জিনিস ঘটতে পারে, একটি হলো, আপনার কাজটি শেষ করতে অধিক সময় লেগে যেতে পারে। আর অপরটি হলো, আপনি হয়তো অতিরিক্ত পরিশ্রম করে ফেলতে পারেন। আর এ দুটির কোনোটিই আপনার জন্য ইতিবাচক ফলাফল বয়ে নিয়ে আসবে না। যথাযথ কর্মপন্থা অনুসরণ করে, যত দ্রুত সফলতা অর্জন করা সম্ভব; কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ না করে, তা অর্জন করা প্রায় অসম্ভব।

Source: turbotax.intuit.com

অধিকাংশ উদ্যোক্তারাই সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে, ইমেইল চেক করে থাকে এবং সারাদিন কী ধরনের কাজ করবে, সেগুলোর একটি কর্মপন্থা ও সময়সূচি তৈরি করে। তারপর সেই সিডিউল অনুযায়ী সারাদিনের কাজকর্মগুলো সম্পাদন করে থাকে। এভাবে কাজ করার কারণে তারা সফলভাবে নিজস্ব ব্যবসায় টিকে রাখতে সক্ষম হয়ে থাকে। তাই আপনি যদি স্ব-চাকরি শুরু করে থাকেন, তাহলে আপনাকেও একটি কর্মপন্থা নির্ধারণ করতে হবে। শুধু কর্মপন্থা গ্রহণ করলেই হবে না, বরং তা কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে। যদি কর্মপন্থা অনুযায়ী কাজ না করেন, তাহলে কখনোই সফলতার মুখ দেখতে পারবেন না। সবচেয়ে ভালো হয় আপনি যদি আগের দিন রাতেই, পরবর্তী দিনের কর্মপন্থা একটি কাগজে লিখে রাখেন।

Source: theselfemployed.com

আবার আপনি এক সপ্তাহের কর্মপরিকল্পনাও একসঙ্গে তৈরি করে নিতে পারেন। আপনার সুবিধামতো কর্মপন্থা নির্ধারণ করে সে অনুযায়ী কাজ করে যান। তাহলে দেখবেন, একদিন সফলতা আপনার কাছে এসে ধরা দিয়েছে। আর স্ব-চাকরি কিংবা ব্যবসার প্রথম মাস টিকে থাকতে হলে, কর্মপরিকল্পনা ও সময়সূচি তৈরি ও তা ঠিকঠাক অনুসরণ করার বিকল্প কল্পনাই করা যায় না।

২. অর্থ ব্যয়ে সচেতন হয়ে উঠুন

নিজস্ব ব্যবসা ও চাকরিরক্ষেত্রে অন্যতম মূলধন হলো অর্থ। স্ব-ব্যবসা টিকে থাকবে কি, থাকবে না, তা অনেকাংশেই অর্থের উপরে নির্ভর করে। কেউ কেউ ব্যবসা শুরু করার পরেই, প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে প্রচুর অর্থ ব্যয় করতে থাকে।

Source: entrepreneur.com

এতে একটা সময়ে গিয়ে অর্থ ঘাটতি দেখা যায়, তখন আর সে, তার ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখতে পারে না। এভাবে অকালেই ধ্বংস হয়ে যায় অনেক উদ্যোক্তার স্বপ্ন। তাই আপনি আপনার ব্যবসায় অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে সচেতন হোন। যতটুকু অর্থ ব্যয় করা প্রয়োজন ততটুকুই ব্যয় করুন। তারপর আপনার ব্যবসা থেকে লাভ আসা শুরু হলে, তখন ব্যয়ের পরিমাণ বাড়িয়ে দেবেন। এভাবে আয় ও ব্যয়ের মাঝে সামঞ্জস্য রেখে ব্যবসা পরিচালনা করলে দেখবেন, খুব সহজেই সফলতার মুখ দেখতে পেয়েছেন।

Source: sarahholloway.co.uk

আর যে কোনো ব্যবসায় প্রথম মাসটি টিকে থাকার ক্ষেত্রে, এই দিক নির্দেশনাটি অত্যন্ত ফলপ্রসূ। কারণ অধিকাংশ উদ্যোক্তাই এই পরামর্শটি ঠিকমতো অনুসরণ না করার ফলে, স্ব-চাকরির প্রথম মাসই ভালোভাবে টিকে থাকতে পারে না।

৩. সংযুক্ত রাখুন

আপনি যখন প্রথম ব্যবসা শুরু করবেন, তখন স্বাভাবিকভাবেই আপনার নেটওয়ার্ক সীমিত হবে। এতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। বরং আপনার ব্যবসার সঙ্গে মানুষদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকুন। বর্তমান সময়ে অনলাইনের মাধ্যমে খুব সহজেই মানুষের সঙ্গে নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা যায়। একটি ব্যবসার সঙ্গে মানুষের সংযুক্ততা ও নেটওয়ার্কিং, ব্যবসার নতুন নতুন সুযোগ-সুবিধার দ্বার খুলে দেয়।

Source: canadianimmigrant.co

গবেষণায় দেখা গেছে, অধিকাংশ উদ্যোক্তাই বিভিন্ন ধরনের মানুষের সঙ্গে বিচ্ছিন্নতার কারণেই ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়। তাই আপনি আপনার নতুন ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখতে হলে, অবশ্যই আপনার ব্যবসার সঙ্গে অন্যান্য মানুষের সংযুক্ততা বৃদ্ধির জন্য কর্মপন্থা গ্রহণ করতে হবে।

৪. বিপণন চালিয়ে যেতে থাকুন

যেকোনো ব্যবসার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে বিপণন। কোনো ব্যবসাই টিকে থাকতে পারবে না, যদি ঐ ব্যবসার বিপণন কার্যক্রম সঠিকভাবে পরিচালিত না হয়। আপনার বিপণন কার্যক্রম যদি সঠিকভাবে চলতে থাকে, তবে আপনার কোনো কাজই থেমে থাকবে না। বরং আপনার ব্যবসা ক্রমশ উন্নতির দিকে ধাবিত হবে। তাই ব্যবসা শুরুর প্রথম থেকেই বিপণন কার্যক্রম চালিয়ে যেতে থাকুন।

Source:newzealandnow.govt.nz

আপনি নতুন কোনো ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে, এই ৪টি পরামর্শ মাথায় রেখে যথাযথভাবে কাজ করে গেলে, আপনার ব্যবসায় টিকে থাকা নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা করতে হবে না। বরং সফলভাবে প্রথম মাস টিকে থাকতে পারবেন এবং ক্রমাগত সফলতার মুখ দেখতে সক্ষম হবেন।

Featured Image:Thebalancesmb.com

The post স্ব-চাকরিতে প্রথম মাস ভালোভাবে টিকে থাকতে ৪টি পরামর্শ appeared first on Youth Carnival.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *