একজন সফল নিয়োগ পরামর্শদাতার ৮টি গুণাবলি

Image Source: medium.com

বর্তমান বিশ্বে চাকরি ক্ষেত্র প্রতিনিয়ত প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে উঠছে। অনেক কোম্পানি এখন যোগ্য প্রার্থী নিয়োগ দেয়ার ক্ষেত্রে একজন অভিজ্ঞ নিয়োগ পরামর্শদাতার সাহায্য নিয়ে থাকে। বর্তমানে যোগ্য কর্মী খুঁজে বের করা বেশ কঠিন, সময়সাপেক্ষ এবং ব্যয়বহুল কাজ। তাই উপযুক্ত প্রার্থী নিয়োগ দেয়ার জন্য একজন নিয়োগ পরামর্শদাতার সাহায্যের প্রয়োজন হয়। নিয়োগ পরামর্শদাতা কোম্পানির পক্ষ হয়ে খণ্ডকালীন অথবা পূর্ণকালীন কর্মী নিয়োগ দিয়ে থাকেন।

নিয়োগ পরামর্শদাতার মূল কাজ হচ্ছে, একটি কোম্পানির চাকরির ধরন বিশ্লেষণ করে সে অনুযায়ী বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা, আবেদনপত্র সংগ্রহ করা এবং আবেদনকৃত প্রার্থীদের আবেদন পত্র যাচাই বাচাই করে যোগ্য প্রার্থীদের সাক্ষাৎকারের নেয়া। কিছু প্রতিষ্ঠান লিখিত এবং মৌখিক আবার কোন প্রতিষ্ঠান শুধুমাত্র মৌখিক পরীক্ষা নিয়ে থাকে। যোগ্যতা, দক্ষতা এবং সকল প্রয়োজনীয় তথ্য বিশ্লেষণ করে নিয়োগ পরামর্শদাতা কোম্পানির জন্য উপযুক্ত প্রার্থী নিয়োগ দিয়ে থাকেন। একজন অভিজ্ঞ এবং সফল নিয়োগ পরামর্শদাতা হতে হলে আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম ও ধৈর্য ধারণ করতে হবে।

একজন সফল নিয়োগ পরামর্শদাতার কী কী গুণাবলি থাকতে হবে, তাই  নিয়ে আজকের এই আলোচনা।

পেশাদারিত্ব বজায় রাখা

Image Source: shannaatfield.com 

একজন সফল নিয়োগ পরামর্শদাতা হতে হলে প্রথমেই যে জিনিসটির প্রয়োজন তা হল পেশাদারিত্ব। লক্ষ্য এবং গুণাগুণ বজায় রেখে যেকোন কাজ করাকে বলা হয় পেশাদারিত্ব। যদি কারো মধ্যে কাজের প্রতি শ্রদ্ধা, সৎভাবে কাজ করার উদ্যম, দায়িত্ব নেয়ার ক্ষমতা, সময়মতো কাজ শেষ করার প্রবণতা এবং কর্মদক্ষতা থাকে, তাহলে তার মধ্যে পেশাদারিত্ব আছে। যে ব্যক্তি যত বেশি পেশাদার, তার উন্নতি তত তাড়াতাড়ি হয়ে থাকে।

ইতিবাচক মনোভাব

Image Source: parentingmonkey.com

ইতিবাচক মনোভাব আপনাকে প্রাণোচ্ছল রাখতে এবং যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সাহায্য করবে।  ইতিবাচক মনোভাব যেকোনো নেতিবাচক পরিস্থিতি মোকাবেলার চাবিকাঠি। সুতরাং যতোই বাধা আসুক না কেন, নেতিবাচকতা পরিহার করতে পারলেই আপনি সফল হতে পারবেন।

কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা

Image Source: insbright.com

আমরা সবাই জানি, পরিশ্রম সৌভাগ্যের প্রসূতি। সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে উঠতে হলে কঠোর পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই। সুতরাং সফল হতে হলে কঠোর পরিশ্রম করতেই হবে।

একজন নিয়োগ পরামর্শদাতা দায়িত্ব পালন করা অবশ্যই কঠিন একটি কাজ। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে। গবেষণা, নেটওয়ার্ক তৈরি, বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা, আবেদনপত্র সংগ্রহ করা এবং আবেদনকৃত প্রার্থীদের আবেদন পত্র যাচাই বাচাই করে যোগ্য প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেয়া এরকম অনেক কাজ একজন নিয়োগ পরামর্শদাতাকে করতে হয়। প্রতিদিন একটানা ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাজ করার মন মানসিকতা আপনার থাকতে হবে। তবেই সফল হতে পারবেন।

নেটওয়ার্কিং

Image Source: marganconsulting.com

সফল নিয়োগ পরামর্শদাতা হতে চাইলে আপনাকে নেটওয়ার্কিং ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক তৈরি করতে হবে। কারণ  বর্তমানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত যোগাযোগ বা সুপারিশের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হয়ে থাকে। এছাড়াও আপনার বর্তমান ক্লায়েন্ট যদি আপনার কাজের প্রশংসা করে থাকেন, তাহলে এভাবে লোকমুখে আপনার প্রচারণা হয়ে যাবে। সুতরাং প্রতিযোগিতাপূর্ণ মার্কেটে টিকে থাকতে হলে নেটওয়ার্কিংয়ের কোন বিকল্প নেই।

যোগাযোগ দক্ষতা

Image Source: cqeacademy.com

একজন সফল নিয়োগ পরামর্শদাতার সাফল্যের মূলে রয়েছে যোগাযোগ দক্ষতা।  চাকরিক্ষেত্রে আপনাকে প্রতিদিন প্রচুর মানুষের সাথে মিশতে হবে। এভাবে প্রতিদিন এত মানুষের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করা নিয়োগ পরামর্শদাতা জন্য নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। এসব ক্ষেত্রে অনীহা দেখালে চলবে না। বরং এসব কাজ উপভোগ করতে হবে। তাহলে কাজ করা আপনার জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে।

যোগাযোগ দক্ষতা আপনার কাজের বিকাশ, নেটওয়ার্ক তৈরি এবং প্রতিযোগিতার বাজারে আপনার জায়গাটি সুরক্ষিত রাখতে সাহায্য করবে।

দলগত কাজে পারদর্শিতা

Image Source: aid.ed.eu

বর্তমান যুগে যে কোন কর্মক্ষেত্রে সফল হতে হলে দলগত কাজেও পারদর্শী হতে হয়। সুতরাং দলগত কাজে পারদর্শিতা না থাকলে এখন থেকেই অভ্যাস গড়ে তুলুন। আগেই বলা হয়েছে, আপনাকে বিভিন্ন পর্যায়ে বিভিন্ন কাজের জন্য অনেক ধরনের মানুষের সাথে মিশতে হবে। এজন্য আপনাকে  নম্র, কাজের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সকলের ছোটখাটো ভুলত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার মন মানসিকতা থাকতে হবে। এবং সেইসাথে নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

 চাকরির বিজ্ঞপ্তি এবং কাজের বিবরণী তৈরির দক্ষতা

চাকরিপ্রার্থীদের জন্য আকর্ষণীয় চাকরি বিজ্ঞপ্তি এবং কাজের বিবরণী তৈরি করা একজন নিয়োগ পরামর্শদাতা কাজের অংশ। আপনি যদি বিভ্রান্তিকর চাকরি বিজ্ঞপ্তি এবং কাজের বিবরণী দেন, তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত চাকরি প্রার্থী খুঁজে বের করা কঠিন হয়ে পড়বে। এবং অহেতুক আপনার সময় ও অর্থ নষ্ট হবে, যা আপনি অন্য কাজে ব্যয় পারতেন।

Image Source: techentice.com

একটি কাজের বিবরণীতে চাকরি সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন, শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, দক্ষতা ইত্যাদির উল্লেখ থাকে। যার সাহায্যে আপনি কম প্রচেষ্টায় উপযুক্ত প্রার্থী খুঁজে বের করতে পারবেন। তাই আপনাকে ব্যতিক্রমধর্মী চাকরি বিজ্ঞপ্তি ও কাজের বিবরণী তৈরিতে দক্ষ হতে হবে।

সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক দক্ষতা

Image Source: thebalancecareer.com

কর্পোরেট জগতে সফল হতে হলে আপনার  সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক দক্ষতা থাকতে হবে। বিশেষ করে আপনি যদি নিয়োগ প্রক্রিয়ার সাথে যুক্ত থাকেন। যেকোনো কাজের পরিকল্পনা, সমস্যার সমাধান এবং জটিল পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক দক্ষতার প্রয়োজন। একজন নিয়োগ পরামর্শদাতার প্রতিনিয়ত নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তাই একজন নিয়োগ পরামর্শদাতার সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক দক্ষতা থাকতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *