আয় করুন স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়ে

স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা সারা বিশ্বে বেশ প্রচলিত ও জনপ্রিয়। বর্তমানে মানুষ চাকরি খোঁজার চেয়ে স্টার্টআপের দিকে বেশি ঝুঁকে পড়ছে। আর তাই, স্টার্টআপের দুনিয়া আরো বেশি প্রতিযোগিতামূলক হয়ে যাচ্ছে। সারা পৃথিবীজুড়ে অনেকগুলো স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। তবে তার মধ্যে বিশেষ কিছু স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা রয়েছে, যেগুলোতে আপনি অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হতে পারলে আয় করতে পারবেন বেশ মোটা অংকের অর্থ।

Source: computer.org

চলুন আজকে জানা যাক এমন কিছু স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা সম্পর্কে, যেগুলোতে অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হতে পারলে নাম, যশ আর খ্যাতির পাশাপাশি আয় করতে পারবেন মোটা অংকের অর্থ।

Source: adcglobal.org

টেক ক্রাঞ্চ ডিসরাপ্ট

নতুন স্টার্টআপ কোম্পানিগুলোর জন্য টেক ক্রাঞ্চ ডিসরাপ্ট হচ্ছে, সবচেয়ে জনপ্রিয় ও বহুল উচ্চারিত একটি স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা। আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়াতে প্রতি বছর দুবার এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগীদের মধ্যে থেকে বিজয়ী স্টার্টআপ কোম্পানিকে  ৫০ হাজার ডলার প্রাইজ মানি প্রদান করা হয়।

Source: catchwordbranding.com

বিচারক প্যানেলের সামনে দাঁড়িয়ে, প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে প্রতিযোগীরা তাদের স্টার্টআপের পিচ প্রদান করে থাকেন। বিজয়ী স্টার্টআপ কোম্পানি ছাড়াও অন্যান্য সেরা স্টার্টআপ কোম্পানিগুলো এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিশ্বসেরা ইনভেস্টর ও পার্টনার পেয়ে থাকে।

Source: aol.com

সাধারণত প্রত্যেক বছরের মে, সেপ্টেম্বর অথবা আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়েই এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে। এশিয়া, ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক, সান ফ্রান্সিসকো এবং ইউরোপ জুড়ে বিভিন্ন স্থানে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

Source: impakter.com

ওয়েব সামিট

টেক ইনসাইডার, ইনভেস্টর, মিডিয়া এবং হাজার হাজার নতুন স্টার্টআপের সমন্বয়ে আয়োজন করা হয় ওয়েব সামিট স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার। এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় মূলত ওয়েবসাইট ও ইন্টারনেট প্রযুক্তির উপর বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। এছাড়া এই প্রতিযোগিতায় অন্যান্য ইনোভেটিভ ও ইউনিক স্টার্টআপগুলোও অংশগ্রহণ করে থাকে।

Source: vizrt.com

সাধারণত প্রত্যেক বছরের নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময়েই এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে। সারা বিশ্বের সকল নতুন ও পুরোনো স্টার্টআপকারিরা ডাবলিনে উড়ে আসেন এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য।

source: websummit.com

সেভেন ভিপিডি বা সেভেন ভেঞ্চারস পিচ ডে

ইউরোপিয়ান মিডিয়া জায়ান্ট প্রোসাইবেন স্যাট ওয়ান ও সেভেন ভেঞ্চারস ক্যাপিটাল আর্ম কর্তৃক আয়োজিত হয়ে থাকে এই ইউনিক স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা। এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় সেক্টর ও ক্যাটাগরিভেদে বছরের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ইভেন্টে স্টার্টআপ পিচের আয়োজন করা হয়ে থাকে, যেটাকে বলা হয় পিচ ডে।

Source: seedmatch.de

পুরষ্কারের দিক থেকে এই প্রতিযোগিতা অন্যান্য স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা থেকে সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে থাকে। এখানে  বিজয়ীকে মিলিয়ন ডলার ক্যাশ ও একইসাথে মিডিয়া কাভারেজ প্রদান করা হয়। এক্ষেত্রে বেশ কয়েকজন প্রতিযোগী বিজয়ী হতে পারেন।

Source: slideshare.net

প্রত্যেক বছর জুন, নভেম্বর ও ডিসেম্বরে, লন্ডন, বার্লিন ও তেল আবিবে আয়োজন করা হয়ে থাকে এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার। এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সকল কোম্পানিকে মিডিয়া কাভারেজ প্রদানের পাশাপাশি মার্কেটি রিসার্চ ও গ্রোথ হ্যাকিংয়ের ব্যাপারে সম্পূর্ণভাবে সাহায্য করার জন্যে নামীদামী পার্টনার প্রদান করা হয়।

Source: sevenventures.de

স্লাশ

এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা ততটা জনপ্রিয় না হলেও, এর সাজানোগোছানো ভাবের কারণে এটি বেশ নাম কুড়িয়েছে। হেলসিঙ্কি ও ফিনল্যান্ডে নভেম্বরের শেষদিকে, মাত্রাতিরিক্ত ঠাণ্ডায় এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে।

Source: forbes.com

এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা অন্যান্য স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার চেয়ে আলাদা। সারা বিশ্বের সকল স্টার্টআপ প্রতিযোগিতাগুলোর মধ্যে থেকে বাছাই করে মাত্র ১০০ টি স্টার্টআপ কোম্পানি এখানে তাদের আইডিয়া পিচ করতে পারে। প্রচণ্ড শীতের মধ্যেও এই প্রতিযোগিতায় লক্ষ লক্ষ দর্শক ও জায়ান্ট মিডিয়ার দেখা পাওয়া যায়।

Source: mashable.com

লি ওয়েব

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা কয়েকটি ওয়েব ও টেক কনফারেন্সের মধ্যে লি ওয়েব অন্যতম। কারণ, এটি স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা, টেক ইনসাইডার, কনফারেন্স, ইনভেস্টর এবং মিডিয়াকে একই ছাদের নিচে নিয়ে আসে। প্রত্যেক বছর ডিসেম্বর মাসে প্যারিসে আয়োজন করা হয়ে থাকে এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার। এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সকল কোম্পানিকে  প্রাইজমানি ও মিডিয়া কাভারেজ প্রদান করা হয়।

Source: jess3.com

পাইওনিয়ারস ফেস্টিভ্যাল

তিনদিনের এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় টেক ইন্ডাস্ট্রির উপর বিশেষ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। সেই সাথে বর্তমান অবস্থান থেকে ভবিষ্যতে, প্রযুক্তি কিভাবে ও কোথায় এগুবে, সে সম্পর্কেও আলোচনা করা হয়।

Source: startups.fm

অনেকের ধারণা  ভুল প্রমাণিত করতেই এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা বিজয়ী কোম্পানিদের ১ লক্ষ ইউরো প্রাইজমানি প্রদান করে থাকে, যা অন্যান্য সকল স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার প্রাইজমানি থেকে অনেক বেশি। প্রত্যেক বছর অক্টোবর থেকে মে মাসে ভিয়েনাতে আয়োজন করা হয় এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার।

Source: startups.fm

এসএসএক্সডব্লিউ এক্সেলারেটর স্টার্টআপ কম্পিটিশন

এসএসএক্সডব্লিউ মূলত সিনেমা, সংগীত ও বিভিন্ন ফেস্টিভ্যালের কনফারেন্স আয়োজন করে সবচেয়ে বেশি নাম কুড়িয়েছে। তবে কয়েক বছর ধরেই এসএসএক্সডব্লিউ প্রযুক্তি ও স্টার্টআপ কনফারেন্স আয়োজন করছে, যেগুলো সর্বোচ্চ ছয়দিনব্যাপী দীর্ঘ হয়ে থাকে। টুইটার ও ফোরস্কোয়ারের মতো টেক জায়ান্টরাও এখানে তাদের স্টার্টআপ সম্পর্কে কনফারেন্সের আয়োজন করে থাকে।

Source: ipglab.com

বিচারক প্যানেলের সামনে দাঁড়িয়ে প্রতিযোগীরা তাদের স্টার্টআপের পিচ প্রদান করে থাকে। বিজয়ী স্টার্টআপ কোম্পানি এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিশ্বসেরা ইনভেস্টর ও পার্টনারদের নিজেদের দলে পেয়ে থাকেন। যদিও এই প্রতিযোগিতায় অন্যান্য স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা থেকে তুলনামূলকভাবে কম প্রাইজমানি দেয়া হয়। কিন্তু অন্যান্য স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার তুলনায় এখানে অংশ নিয়ে অনেক বেশি যশ ও খ্যাতি অর্জন করা সম্ভব।

Source: mashable.com

প্রত্যেক বছর মার্চ মাসে অস্টিনে আয়োজন করা হয়ে থাকে এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার। উল্লেখ্য যে, এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার বিজয়ীরা সিড ফান্ডিং থেকে শুরু করে ফান্ডিংয়ের শেষ ধাপে সর্বোচ্চ ১.৭ বিলিয়ন ডলার আয় করতে পারেন।

Featured Image: startup-autobahn.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *