কন্টেন্ট মার্কেটাররা যেভাবে নিত্যনতুন আইডিয়া বের করতে পারেন

সৃজনশীল নিত্যনতুন কন্টেন্ট হরহামেশাই মনে আসে না, বিশেষ করে যদি উপযুক্ত মানসিক অবস্থা না থাকে। কিন্তু পেশাগত কারণে কন্টেন্ট মার্কেটারদেরকে প্রায়শই অভিনব কন্টেন্ট সৃষ্টি করার প্রয়োজন হতে পারে। আবার অনেক নতুন বিষয় পেলেই সবগুলো যে কন্টেন্ট মার্কেটিং এর জন্য উপযুক্ত এবং লাভজনক হবে তাও নয়। আর শুধু নতুনরা নয়, এ ব্যাপারে ঝানু ব্যাক্তিরাও কখনও কখনও রীতিমত হিমশিম খান।

তাছাড়া ইতোমধ্যেই নানারকম আইডিয়া ও কন্টেন্ট নিয়ে অসংখ্য সাইট বিদ্যমান, তাই এদের মধ্য থেকে আবার নতুন ধারণা নিয়ে আসাটাও সহজ নয়।

ছবিসূত্রঃ Kapost’s Marketeer

যখন আপনি আপনার কন্টেন্ট নিয়ে লিখছেন তখন এর ভালো মার্কেটিং পাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে আপনার টার্গেট গ্রুপ বা পাঠকদের পছন্দ ও অপছন্দ সম্পর্কে জানতে হবে। যদি আপনার পাঠকগোষ্ঠীর বয়স হয় ২৫ এর কম, তবে আপনাকে যে ভাষা বা ভঙ্গিতে লিখতে হবে, ৫০ বয়সোর্ধ্ব  পাঠকদের জন্য নিশ্চই লেখার ভঙ্গি বা বিষয় একইরকম হবে না। কন্টেন্ট মার্কেটিংয়ের এরকম খুঁটিনাটি বিষয় ও টিপস নিয়ে এখানে আলোচনা করা হলো।

  যেভাবে নিত্যনতুন কন্টেন্ট উদ্ভাবন করা যেতে পারে

ছবিসূত্রঃ siteweb.co.za

অধিকাংশ প্রতিষ্ঠিত কন্টেন্ট মার্কেটিং কোম্পানিগুলোতে দিন অনুযায়ী নিত্য নতুন কন্টেন্ট আপলোড দেয়ার জন্য খুব সুন্দর এবং গোছানো পূর্বপরিকল্পনা থাকে। একদিকে পরিকল্পনা অনুযায়ী বাছাইকৃত কন্টেন্ট নিয়ে লেখা হয় আরেকদিকে নতুন কন্টেন্ট বের করবার জন্য যারা নিয়োজিত থাকেন তারা সর্বত্র ও সর্বক্ষণ অভিনব কন্টেন্ট খুঁজতে থাকেন। ফলে সাইটটির কার্যক্রম ও মার্কেটিং সবসময় সচল থাকে।

তবে এজন্য যারা নতুন কন্টেন্ট খোঁজার দায়িত্বে আছেন তাদেরকে একত্রিত করে একসাথে নতুন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা প্রয়োজন। এ ধরণের মিটিংকে বলা হয় ব্রেনস্টর্মিং সেশন। একটি সেশনে যত নতুন ও পাঠকের পছন্দানুযায়ী কন্টেন্ট বের হবে, ব্রেনস্টর্মিং সেশন তত সফল হবে। আর কিভাবে নতুন ও ভালোমানের কন্টেন্ট বের করা সম্ভব তা নিয়ে এখানে কিছু টিপস দেয়া হলো।

১.  যখন যে বিষয় মনে আসে, তৎক্ষণাৎ তা লিখে ফেলুন

ছবিসূত্রঃ cnnindonesia.com

ব্রেনস্টর্মিং সেশনে আলোচনার সময় যখনই নতুন কোন ধারণা আসে তখনই তা লিখে রাখুন। পরবর্তীতে তা নিয়ে বিস্তারিত কিংবা তা থেকে আবার নতুন অনেক কন্টেন্টের উদ্ভব হতে পারে। কিন্তু লিখে না রাখলে ভুলে যাওয়া, বা মূল বিষয় অন্য দিকে মোড় নেয়া বা ফোকাস নষ্ট হওয়া ইত্যাদি সমস্যার কারণে কিছু ভাল কন্টেন্ট হারিয়ে যেতে পারে।

২. একটি চার্ট তৈরী করুন

নতুন কন্টেন্ট বের করার সময় কাস্টমারের পছন্দ অপছন্দ অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। তাছাড়া নতুন কন্টেন্টগুলো সম্পর্কেও বিস্তারিত ও পরিষ্কার ধারণা রাখা জরুরী যেন কাস্টমারদেরকে বিষয়টি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা দেয়া যায়।

যে কন্টেন্টগুলো নিয়ে লেখা যেতে পারে সেগুলো একটি কলামে লিখে পাশের কলামে সেই টপিক সম্পর্কে কাস্টমারদের বর্তমান চাহিদা বা ধারণা কেমন হতে পারে সে সম্পর্কে লিখে রাখুন। এরপর দেখতে হবে, কোন লেখাগুলো কাস্টমারের বেশি পছন্দ হবে আর কোনগুলো বাদ দিতে হবে।

৩.  বিশেষজ্ঞদের সাথে যোগাযোগ রাখা

ছবিসূত্রঃ SEOClerks

কন্টেন্ট বাছাইয়ের পর এই কন্টেন্টগুলো নিয়ে বিশেষজ্ঞ বা খ্যাতনামা ব্যক্তিদের ধারণা, মতবাদ বা এ সংক্রান্ত কোন কাহিনী তথা সাক্ষাৎকার গ্রহণ করার ব্যবস্থা করা যেতে পারে। তাদের মতামতগুলো ব্লগের আনুষঙ্গিক কন্টেন্টে কমেন্ট আকারে প্রকাশ করলে এগুলো পাঠকদের দৃষ্টি আকর্ষণ ও আস্থা অর্জনে সক্ষম হবে।

৪.  সবসময় নতুন কন্টেন্ট উদ্ভাবন করার প্রয়োজন নেই

একটা সাইটের সব কন্টেন্ট যে সবসময় নতুন বা অন্যদের চেয়ে আলাদা হতে হবে এমন কোন কথা নেই। চলতি যে কোন বিষয় নিয়ে নিজের মত করে বা ভিন্ন আঙ্গিকে লেখা যেতে পারে। কারণ অনেক সময় নতুন কন্টেন্ট বের করাটা সময়সাপেক্ষ হয়ে পড়ে। সে সময়টুকু নষ্ট না করে বরং যে কোন আনুষঙ্গিক বিষয় নিয়ে কাজ করে ব্লগ কার্যক্রম চালু রাখাটাই উত্তম ও লাভজনক।

৫.  কিউব আউট

ছবিসূত্রঃ

যে কোন নতুন কন্টেন্ট বের করার সময় কিউবের মত ৬টি দৃষ্টিকোণ থেকে ভালমত যাচাই বাছাই করে দেখতে হবে বিষয়টি কতটুকু সফল হতে পারে। এ পদ্ধতিকে বলা হয় কিউব আউট। যে কোন নতুন বিষয় পেলে সাথে সাথে লেখা শুরু না করে আগে যাচাই করে নেয়া ভাল।

৬. কন্টেন্টের জন্য আকর্ষণীয় হেডলাইন বাছাই করা

আপনি যে বিষয় নিয়ে লিখছেন সে বিষয়ে পাঠকদের আকৃষ্ট করতে পারে এরকম হেডলাইন বাছাই করুন। আপনার হেডলাইন দেখেই যেন তারা বুঝতে পারে লেখাটির মূল বিষয় কি নিয়ে। তবে খেয়াল রাখবেন বেশি ভণিতা করে বা নাটকীয় হেডলাইন দিলে কন্টেন্টটি অনেক আকর্ষণীয় হলেও বোঝার অসুবিধার কারণে আপনি পাঠক হারাতে পারেন।

আবার অনেক বড় হেডলাইন পড়তেও পাঠকেরা বিরক্ত বোধ করেন। লেখার সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় বা শব্দ ব্যবহার করে ছোট এবং উপযুক্ত একটি হেডলাইন অনাকর্ষণীয় কন্টেন্টের জন্যও ভালো মার্কেটিংয়ের মাধ্যম হতে পারে।

৭.  কন্টেন্টের মাধ্যম বাছাই করা

ব্রেনস্টর্মিং সেশনে কন্টেন্ট বাছাইয়ের পর পরই ঠিক করে ফেলুন কন্টেন্টটি কোন মাধ্যমে প্রকাশ পাবে, ব্লগ, ভিডিও,পডকাস্ট নাকি অন্য কোনো মাধ্যমে।

৮.  ইয়াহু (Yahoo Answers) থেকেও পেতে পারেন নতুন কন্টেন্টের সন্ধান

ইয়াহু আনসার্স সাইটে প্রতিনিয়ত অসংখ্য সাবস্ক্রাইবার তাদের প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধান করছেন এবং অনেকে তাদের মতামত জানাচ্ছেন। প্রতি সেশনে এই সাইটে একবার খোঁজ চালিয়ে আপনিও পেতে নতুন ও আকর্ষণীয় কিছু কন্টেন্ট সাথে পাঠকদের চাহিদা সম্পর্কেও পাবেন বিস্তারিত ধারণা।

এ টিপসগুলো মেনে চললে আপনিও আপনার সাইটের জন্য একটি সফল ব্রেনস্টর্মিং সেশন সম্পন্ন করতে পারবেন, সাথে পেতে পারেন অনেক নতুন ও ভালো মানের কন্টেন্ট।

Featured Image: Digital Marketing Institute 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *